বাংলায় প্রথম সম্পূর্ণ অনলাইন একটি সাহিত্য পত্রিকা

.

.

.

.

সম্পাদকীয়

সময়ের এক অদ্ভুত ফেরে রয়েছি আমরা। মারি নিয়ে ঘর করতে হচ্ছে নিত্যদিন। সকাল-বিকেল আক্রান্ত, মৃত ও সুস্থ হয়ে ওঠার নৈমিত্তিক হিসেব দেখে যোগ-বিয়োগ করেও হাতে আপাতত পেন্সিল ছাড়া কিছুই থাকছে না। অনেকেই টিকার অপেক্ষায় রয়েছেন, যদি তা জয়টিকা হয়ে ওঠে, এই আশায়। এর মধ্যে প্রকাশ্যে বা গোপনে বদলে যাচ্ছে অনেক কিছু। চলাফেরা, মেলামেশা, কাজকর্মেও বেড়ি পড়েছে। এই সময়ের পিঠে একটি ছাপ মেরে তাকে কালপ্রবাহের হাতেই উৎসর্গ করে দেওয়ার চেষ্টাও চলছে। তাবৎ বিশ্বেই চলছে। আমরাও তার বাইরে নেই। স্বাভাবিক অবস্থার এই হেরফেরকে নয়া নামে ডাকলেই যেন মেনে নেওয়ার এবং মানিয়ে নেওয়ার কাজটি সহজেই সমাধা হয়ে যাবে। যেন অনেক সমীকরণ মিলে যাবে। যদিও ভাগশেষ হিসেবে সব ক্ষেত্রেই যে গোটা মানুষ পাওয়া যায় তা নয়। অঙ্ক কষায় ভুল থাকতে পারে। আবার অঙ্কটাতেই ভুল থাকতে পারে। আগ্রহীদের তখন শেষের পাতায় অনুশীলনী দেখতে হয়।

Recent Posts

কুড়ি নম্বর লোক

বাংলা ভাষার বিশিষ্ট লেখকদের লেখা গল্পের পাঠ থাকছে এখানে। পাঠ করছেন প্রখ্যাত অভিনেতা ও বাচিকশিল্পীরা। তাঁদের মুখোমুখি বসে দেখুন ও শুনুন। এই সপ্তাহে অরিন্দম বসুর গল্প "কুড়ি নম্বর লোক"। পাঠ করেছেন রমাপদ পাহাড়ি।
আরও পড়ুন

ধৃতিরূপা দাসের দুটি কবিতা

পৃথিবীর নিম্নচাপে ঈশ্বর ফেলে চলে গেছে অতএব গুহার ভেতর না চিনতে পারা ফুলগুলি... অথচ কে নাম রাখে বলো? প্রাণীটি তাদের চেয়ে বেশি বেঁচে থেকে মায়া টের পায় সরল খাদকে মিশে যাওয়া জটিল খাদকে মিশে যাওয়া কোষের কি কোনও দিক থাকে? ঈশ্বর ফেলে চলে গেছে এ দুঃখ জড় চামড়ার; কিছুটা বহন করা ভাল খাদ্যের ভারে জমি তার স্বাভাবিক গাছে শরীরের স্বাদ…
আরও পড়ুন

অনির্বাণ, বেড়াল ও কুয়াশা

দু’জনের হাসি ছড়িয়ে পড়ে পুকুরের ঢেউয়ে। মাছগুলো লুকিয়ে যায়। কচ্ছপটা ঘুমের ভান করে। বকুল গাছের পাখিরা হাই তোলে। অনির্বাণ বলে, রাত হয়েছে। বড্ড খিদে পেয়েছে। চলো বাড়ি যাই।
আরও পড়ুন

প্রযুক্তি, তক্কো, গপ্পো পর্ব ১৬

ধনতান্ত্রিক কাঠামোয় প্রকৃতি, মানুষ, শ্রম, প্রযুক্তি এবং যন্ত্রের মধ্যের যে সম্পর্ক তৈরি করে দেওয়া হয়েছে তা মোটেও প্রাকৃতিক নিয়ম মেনে হয়নি। এখানে উদ্দেশ্য হল মানুষের শ্রমকে কাজে লাগিয়ে প্রযুক্তির মাধ্যমে বিভিন্ন যন্ত্রপাতি তৈরি করে মানুষকে সেই যন্ত্রেরই অধীনে দাস হিসেবে রাখা।
আরও পড়ুন

আমাদের কথা

সংবাদের পাশাপাশি সাহিত্য। এই আয়োজন ছিল শুরু থেকেই। এবার বাংলা ভাষার মননশীল পাঠকদের জন্য “দ্য ওয়াল ” ওয়েব পোর্টাল নিয়ে এল সাহিত্যের সম্পূর্ণ অনলাইন পত্রিকা “সুখপাঠ “। শিল্প -সাহিত্য -সংস্কৃতির অন্য ভাবনা, অনন্য পাঠ।

নিউজলেটার

অপ্রকাশিত হাতের অক্ষরে

অপ্রকাশিত গদ্য

অপ্রকাশিত কবিতা

প্রবন্ধ

বিশেষ রচনা

দেওয়াল ও কাচ

আমাদের প্রিয় বাংলায় কোভিড হয়েছে সন্দেহের বশে প্রতিবেশীকে একঘরে বা পাড়াছাড়া বা লাঠিপেটা করার লীলা দিব্যি দেখা গিয়েছে ও নির্ঘাত আরও যাবে। তবে রোগের ভীতিজনিত এই প্রকট বিদ্বেষের পাশে অন্য কিছু সাম্প্রদায়িকতাও এসেছে এই অসুখের কণ্টকময় পিঠে চড়ে।
আরও পড়ুন

রম্যরচনা

মাতাল-দর্শন

মাতালদের কোনও ধর্ম-বর্ণ-লিঙ্গের ভেদাভেদ নেই। পেটে কারণসুধা পড়লে তারা সব কিছুর ঊর্ধ্বে উঠে যায়। প্রথমেই যেটা হয় সেটা হল, প্রত্যেকেই হয়ে ওঠে এক একজন দার্শনিক। সক্রেটিস, অ্যারিস্টটল কোথায় লাগে!
আরও পড়ুন

ভ্রমণ

বিপন্ন সাংগ্রি-লা

লুকোনো দেশটি শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে তাবড় দার্শনিক, ধর্মতত্ত্ববিদ, দুঃসাহসিক অভিযাত্রীদের আকর্ষণ করেছে। বর্তমানে চিনের গা-জোয়ারিতে সেই গুপ্ত তিব্বত এখন নব্য…
আরও পড়ুন

বন্য কোলাখাম ও ধ্যানমগ্ন রিশপ

অজস্র পাহাড়ি ভাঁজের সারি নেমে গেছে নীচের দিকে আর সেখান থেকেই উঠে গেছে সারিবদ্ধভাবে অন্য ভাঁজগুলো। তারা সম্মিলিতভাবে তৈরি করেছে খাঁজকাটা এক অভিনব পাহাড়ি উপত্যকা,…
আরও পড়ুন

ভ্রমণের ছোট ছবি

সুখপাঠ সাহিত্য পত্রিকার প্রতি সংখ্যায় ভ্রমণের লেখার সঙ্গে থাকে ভ্রমণের ছোট ছবি বা শর্টফিল্ম। শারদ সংখ্যাতেও রইল ভ্রমণের একটি ছোট ছবি। দেখুন জয়সলমীরের সোনার কেল্লাকে নিয়ে তৈরি একেবারে অন্য রকমের একটি ছবি "সোনার কেল্লার অন্দরে"। পরিচালক সঞ্জয় বটব্যাল।
আরও পড়ুন

সাক্ষাৎকার

নদীকে বুঝতে গেলে তার কাছে যেতে হবে : কল্যাণ রুদ্র

নদী শুধু তাঁর চর্চার বিষয় নয়। ভালবাসারও বিষয়। গত চার দশক ভারত বিশেষত বাংলার নদীকে তিনি দেখেছেন খুব কাছ থেকে। তাঁর কাছে নদী মানে শুধু প্রবাহমান জলধারা নয়, জীববৈচিত্র্যের এক বহমান ধারা এবং তার চারপাশের অসংখ্য মানুষের জীবন ও সংস্কৃতি। নদীর উৎস, মোহনা, তার প্রবাহপথ, তার নানা বৈশিষ্ট্য যেমন তাঁর আলোচনায় বারবার উঠে এসেছে তেমনই নদীর ধারের জনজীবনও…
আরও পড়ুন

পুনর্মুদ্রণ

দুর্গোৎসব

পূর্ব্বে রাজারাজড়া ও বনেদী বড় মানুষদের বাড়িতেই কেবল দুর্গোৎসব হতো, কিন্তু আজকাল পুঁটে তেলীকেও প্রিতিমা আনতে দ্যাখা যায়; পূৰ্ব্বেকার দুর্গোৎসব ও এখনকার দুর্গোৎসবে অনেক ভিন্ন।
আরও পড়ুন