বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা
Browsing Category

সাক্ষাৎকার

পত্রিকা বার করার টাকাও ছিল না। আমি অল্প অল্প করে পয়সা জমিয়ে কানের ফুল বানিয়েছিলাম। তার একটা হারিয়ে গিয়েছিল। পত্রিকা করার জন্য ও আমার কাছে ৩ হাজার টাকা চাইল। তখন আমি ওই সোনার দুলটা দিলাম।
আরও পড়ুন

দেশকে যদি না লিখতে পারি তাহলে কী লিখব : অমর মিত্র

রুশ সাহিত্য পড়েই উপন্যাস লেখা শেখা। লাতিন আমেরিকার উপন্যাস অনেক পরে পড়েছি, বছর পনেরো-কুড়ি হবে হয়তো। ২০০০ সালের পরে।…

লোকবাদ্যের প্রেমে পড়ি ‘গুগাবাবা’ দেখে : মৃগনাভি চট্টোপাধ্যায়

ক্ষীরোদদাদুর সঙ্গে দেখা হওয়াটা আমার জীবনের টার্নিং পয়েন্ট। এই শুরু হল আমার লোকবাদ্যের পথে যাতায়াত। আমার জীবনে দাদু…
আমি কলকাতার ইতিহাস পড়তে শুরু করলাম এবং তার সঙ্গে ন্যাশনাল লাইব্রেরিতে বিশাল বিশাল সাইজের কলকাতার মানচিত্র ঘাঁটতে থাকলাম। আমার চোখ একটু একটু করে খুলতে থাকল।
আরও পড়ুন
অসীম দারিদ্র আমার জীবনের সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে। অনেক সময় দেখেছি বই কেউ কিনছেন না। তাও হাল ছাড়িনি। বই নির্ভর করেই আমি বাঁচতে চেয়েছি। আমি প্রত্যেক দিন বাঁচি, প্রত্যেক দিন মরি। তবে আমার প্রত্যেকটা দিন বইয়ের সঙ্গে কাটে, এটাই আমাকে ভীষণ তৃপ্তি দেয়।
আরও পড়ুন

প্রকৃত পাঠকের হাতে বই তুলে দিতে চাই : পরিতোষ ভট্টাচার্য

আমি একটা গতিশীল লোক। এইসব করোনা আমাকে আটকাতে পারবে না। আমি প্রতিদিনই বেরিয়েছি। অন্যান্যদের কাছে উদাহরণ তৈরি করার…

বেঁচে থাকলে একশো বছরই কাজ করে যেতে চাই : জাহিরুল হাসান

যে ভাবনা নিয়ে আমি ইয়ারবুক বের করতে এগিয়ে এসেছিলাম, বিশ্বের আর কোথাও সেভাবে কোনও সাহিত্যকেন্দ্রিক প্রকাশনা হয়নি।…
আমি সন্দীপ দত্ত আজ গোটা বাঙালির কাছে আবেদন রাখছি, এই লাইব্রেরিকে বড় করার জন্য এগিয়ে আসুন। আমাদের ১২০০ স্কোয়ার ফুট জায়গা প্রয়োজন। যদি কেউ দেন। আমরা ভাড়া করেও নিতে রাজি আছি।
আরও পড়ুন