বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা

দীপঙ্কর বাগচীর দুটি কবিতা

নীল সরস্বতী
যা কিছু লিখেছি আমি, প্রাণে মনে, কিংবা অচেতনে
সব সত্যি হয়ে গেছে... ঘোর বর্ষা, নেমেছে উঠোনে
শুরুতে ভেবেছি দেখো, আনমনে এসবই ছেলেখেলা।
যৌবন তারুণ্য জুড়ে; বয়ে গেছে অসুখের বেলা
কোথায় বেজেছে শঙ্খ, মহামারী বিশ্বজুড়ে জাগে
মৃত্যুর দুয়ারে কত... কত শত, প্রাণ যায় আগে
এ-সকল সত্য জানি; দেহ জানি, ছিন্ন এক পাতা
তাহলে কী হেতু এই; দেহ, দেহ, দেহের জড়তা।

আসন্ন উষার কালে, কে নারী এসেছ এই ঘরে
দেবী তুমি সরস্বতী; গ্রন্থ নীল, বীণার আধারে
বলে গেলে, এই দেহ, শুধুমাত্র নয় ছিন্নপাতা
লিখে ফেলো, যা লেখার, সম্ভোগ অধ্যাত্ম গোপনতা

লিখি আমি করপুটে, হায় দেবী এতকাল পরে
যখন দিলে গো দেখা; শতচ্ছিন্ন দেহ পারাবারে।
একলা
এভাবে বোলো না কোনওদিন তুমি একলা
বলেছিল তাকে সমুদ্র অভিযাত্রী

দূরে ছেঁড়া মেঘে ভেসে যায় কত সন্ধে
কেউ নয় সে তো পলাতক এক রাত্রি

কত কথা ভাসে সুদূরের সেই আবছা
চোখে ম্লান ভাষা স্মৃতিমাখা এক কক্ষ
অনভিজ্ঞতা রাখা আছে কোন পাত্রে
অবগাহনের স্থির জলে কার সখ্য...

দুরভিসন্ধি মোটে ভাল নয় ধান্ধা
গনগনে রোদে হেঁটে গেল একা পানসে
অতিবাম থেকে ডান হয়ে যায় বন্ধু
কত রাত কাটে অদ্ভুত একা ম্লান সে

আমি শুধু দেখি দেখে যাই এই ঠাট্টা
বিপ্লবীদের কেনাবেচা আর স্বার্থ
যাত্রার শেষ পড়ে থাকে দিন ক্লান্ত
ফলে মনে হয় রাতখানি হল ব্যর্থ...

আজ বুঝে গেছি চেনা মুখগুলি অন্ধ
স্বার্থবাহের ঝুলি ছাড়া সব শূন্য

এভাবে বোলো না কোনওদিন তুমি একলা
বেঁচে আছি শুধু বেঁচে থাকা হীনমন্য।

* স্বার্থবাহ : ব্যবসায়ী (প্রাচীনকালে বলা হত)।

নীল সরস্বতী যা কিছু লিখেছি আমি, প্রাণে মনে, কিংবা অচেতনে সব সত্যি হয়ে গেছে... ঘোর বর্ষা, নেমেছে উঠোনে শুরুতে ভেবেছি দেখো, আনমনে এসবই ছেলেখেলা। যৌবন তারুণ্য জুড়ে; বয়ে গেছে অসুখের বেলা কোথায় বেজেছে শঙ্খ, মহামারী বিশ্বজুড়ে জাগে মৃত্যুর দুয়ারে কত... কত শত, প্রাণ যায় আগে এ-সকল সত্য জানি; দেহ জানি, ছিন্ন এক পাতা তাহলে কী [...]

আপনি যদি ইতিমধ্যে সুখপাঠের গ্রাহক হয়ে থাকেন, তাহলে লগ ইন করুন।
আপনি যদি "সুখপাঠ " -এর গ্রাহক না হয়ে থাকেন তা হলে আপনার পছন্দ অনুযায়ী এক মাস বা এক বছরের জন্য এখনই গ্রাহক হয়ে যান।
One Year Instant Access
Payment by Visa/Master Credit cardsa
$20/year*
Introductory Price
*Inclusive of GST