বাংলায় প্রথম সম্পূর্ণ অনলাইন একটি সাহিত্য পত্রিকা

.

.

আসুন সাহিত্যের খোলা বারান্দায়।

' সুখপাঠ' বাংলায় প্রথম সম্পূর্ণ অনলাইন একটি সাহিত্য পত্রিকা। গল্প, কবিতা, প্রবন্ধ, উপন্যাসের সঙ্গে রয়েছে শিল্প - সংস্কৃতির বিভিন্ন বিষয়ের লেখা। আছে পরিবেশ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নিয়ে লেখাও। এছাড়াও দেখতে পারবেন ভ্রমণের, পরিবেশের এবং চলচ্চিত্রের শর্টফিল্ম। থাকছে 'গল্পপাঠ', যেখানে বিশিষ্ট লেখকদের লেখা গল্প পাঠ করে শোনাবেন প্রখ্যাত অভিনেতা ও বাচিক শিল্পীরা। এমন আয়োজন অন্য কোনও অনলাইন বা মুদ্রিত সাহিত্য পত্রিকায় নেই। 'সুখপাঠ' তাই পাঠকের ভাবনার অনন্য সঙ্গী।

.

সম্পাদকীয়

‘সুখপাঠ’ পত্রিকার দ্বিতীয় সংখ্যা প্রকাশিত হল। প্রথম সংখ্যা প্রকাশের পর বহু পাঠক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। পত্রিকার গ্রাহকও হয়েছেন অনেকে। বিভিন্ন লেখা নিয়ে তাঁরা মতামতও দিয়েছেন। তাঁদের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। আবার কেউ কেউ অভিমানও দেখিয়েছেন। সে অভিমানের রকমফের রয়েছে। তাঁরা ‘সুখপাঠ’ নাই পড়তে পারেন। তবে অন্যত্র তো সাহিত্যের পাঠে যুক্ত। তাই বা কম কী। কাজেই তাঁরা পাঠক।

আরও যা রয়েছে

নির্বাসিত অপর বাংলা

এপার বাংলা ওপার বাংলা ছাড়াও রয়েছে নির্বাসিত অপর বাংলা। তার লেখাপত্রে জীবনের মননের উপলব্ধিতে ভিন্নতর মাত্রা নান্দনিক বিচারেই সহযাত্রীর মর্যাদা পেতে পারে। এদের না জেনে বাংলা সাহিত্য সম্পর্কে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসা অপরাধ।
আরও পড়ুন

তুমি কেমন আছ

মনে পড়ছে বিনয় মজুমদারকে যেদিন আমার বাড়িতে নিয়ে এলাম, সেদিন আমার অভ্যস্ত সান্ধ্য আড্ডা থেকে ফিরে অনেক কড়া নেড়েও তাঁকে দিয়ে দরজা খোলাতে পারিনি। ফলে ওই বন্ধুর বাড়ি ফিরে গিয়েই বসবার ঘরের সোফায় রাত কাটাতে হল। রাতের কড়া নাড়ায় কি বিনয়ের মন মজেনি? না কি ঘুমিয়েই পড়েছিলেন?
আরও পড়ুন

শেষবিকেলে সিমলিপালে পর্ব ৩

ঐরাবতের মস্ত একটি দল গজগমনে চলেছে পুব থেকে পশ্চিমে। বৃষ্টিতে তাদের কালো গা ভিজে গেছে। হালকা চাঁদের আলো তাদের গায়ে পড়ে পিছলে যাচ্ছে। অজস্র ব্যাং এবং ঝিঁঝিপোকার ডাকের মধ্যে দিয়ে হাতিদের নিঃশব্দ শোভাযাত্রা আমরা বিস্ময়ে অভিভূত হয়ে দেখলাম।
আরও পড়ুন

মণিকাঞ্চন

বেঞ্চি রয়েছে যেমন তেমন। তারকের চায়ের গেলাসের ঠুং ঠাং ঠকাৎ— চেনা সিম্ফনি। চায়ের ঘ্রাণও অতিরিক্তবর্জিত। আপনার শিরে ইন্দ্রলুপ্তি। তবুও যেন একটা গোটা খেলার মাঠ চুবিয়ে ঢোকানো। ঠং শব্দে ভাঙা কাচের টুকরোর ওপর বল লাফিয়ে লাফিয়ে পড়ছে। গালি উড়ছে প্রেমপত্রের মতো। আর মাঠের পাঁচিলের ধার দিয়ে হেঁটে যাচ্ছে আঁচল ওড়ানো এক অষ্টাদশী বুড়ি।
আরও পড়ুন

মহানিষ্ক্রমণ পর্ব ৫

আপনার ভেতরেও বিকৃতকাম আছে। পৃথিবীর প্রত্যেক মানুষের মধ্যে এই প্রবৃত্তি ইনেট। কেউ বিকল্প পদ্ধতিতে নিজেকে স্যাটিসফাই করে, কেউ সারাজীবন জানতেই পারে না তার বুকের ভেতরের ডুবোপাহাড়ের কথা। কেউ বলতে পারে না নিশ্চিন্তে বয়ে চলা নৌকা কখন ফুটো হয়ে ডুবে যাবে।
আরও পড়ুন

কালো মানুষ সাদা কথা পর্ব ৫

প্রেমিকা বা বউরা এসেছে মরদদের শুভেচ্ছা জানাতে, একটা সফল অভিযান থেকে যাতে গোটা শরীর নিয়ে ফিরে আসে। সমুদ্রতীরে রাঁড় মেয়েদের হুল্লোড়। ওরা ওদের পার্টটাইম প্রেমিকদের কাছ থেকে মাছ উপহার নেবে। মাছ হল ভালবাসার ভাষা, বাসনার কারেন্সি। কার্য সম্পাদনে মাছ শেষ কথা।
আরও পড়ুন

ফেলুদার আড়ালে

সত্যজিৎ যে বলেন ‘ছোটদের ছবি’ থেকেও নাকি তাঁকে ‘খোলাখুলিই’ চিনতে পারা যায়, তাহলে ছোটদের লেখা থেকেই বা নয় কেন? এখানেও তো খুব বেশি নিজেকে কিছু লুকোননি সত্যজিৎ! বলা চলে আত্মজীবনী সত্যজিৎ লিখেছেন; ধারাবাহিকভাবে লিখেছেন! লিখেছেন প্রদোষচন্দ্র মিত্রের বকলমে। কীভাবে?
আরও পড়ুন

লাল আলো সবুজ আলো

সে প্রাণপণে চেষ্টা করছিল হাতলটা ঘোরাতে, কিন্তু কোথায় যেন আটকে যাচ্ছে সেই হাতল। তার কীরকম পাগল পাগল লাগছিল সেই মুহূর্তে। তারপর কখন একসময় ট্রেনের সময় হয়ে গেল, শব্দ শোনা গেল ট্রেনের, প্রবল হুঙ্কার দিয়ে দ্রুত এগিয়ে আসছে ট্রেনটা। সে অস্থির হল, হাতল ঘোরাতে চাইল, কিন্তু হাতল ঘুরলই না। ট্রেনটা হুড়মুড় করে ছুটে এল তার দিকে।
আরও পড়ুন

অন্ধকারের আলো

মা বলছিল বাড়িতে ভাল জামাটা পরে ফেলতে। কিন্তু বাড়িতে পরে ফেললে মন্দিরে কী পরে যাব? আমাদের পাশের বাড়ির ওরা যখন মন্দিরে ভিক্ষা দিতে যায় তখন আমাকে সঙ্গে নিয়ে যায় ধোয়াধুয়ি করার জন্যে। বাসন ধুতে ধুতে কোমর ব্যথা হয়ে যায়, তবুও মন্দিরে যেতে আমার ভাল লাগে। আসলে অন্য কোথাও যাবার সুযোগ তো পাই না।
আরও পড়ুন

গানের সলিলে

অসম্ভব একটা খেদ ছিল সলিলদার। বহু আলোচনায় সলিলদা দুঃখ করে বলেছেন, সঙ্গীতকার হিসেবে রবীন্দ্রনাথের গানই একমাত্র স্বীকৃতি পেয়েছে এদেশে। আর বাদবাকি ধ্রুপদী সঙ্গীত। আধুনিক গানকে সেই হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হল কই!
আরও পড়ুন

প্রতিপ্রস্তাব পর্ব ৩

আমরা যারা তাঁর লেখা পড়ে বড় হলাম তারা স্বীকার করে নেবই, আঞ্চলিক বাস্তব থেকে নাগরিকতার কয়েকটি চিহ্ন তাঁর লেখায় এতই প্রকটিত হয়েছিল যে উত্তর-স্বাধীনতা বাংলা গদ্যসাহিত্য সমরেশকে সম্পদ হিসেবেই ভাববে। কিন্তু রহস্য এই যে মৃত্যুর সামান্য পরেই তিনি আড়ালে চলে গেলেন কেন?
আরও পড়ুন

প্রযুক্তি, তক্কো, গপ্পো পর্ব ৫

২০১১ সালেই সান ফ্রান্সিসকোর এক ফার্মাসি একটিমাত্র রোবট দিয়েই যাবতীয় কাজকারবার সেরেছে মানুষের কোনও সাহায্য ছাড়াই। দোকানে খদ্দের এলেই সেই রোবট তার আগের সমস্ত প্রেসক্রিপশন, ওষুধপত্র, অ্যালার্জির ইতিহাস ঘেঁটে তাকে ওষুধ দেয়। এই ওষুধ কোনওভাবেই তার অন্যান্য ওষুধের সঙ্গে মিশে গিয়ে শরীরে বিপদ ডেকে আনবে না। রোবট সেই হিসেব মুহূর্তের মধ্যেই করে ফেলেছে।
আরও পড়ুন

প্রকৃতি আর তার পরিবেশ

‘পরিবেশ’ শব্দটা আমাদের সমাজে তেমন পরিচিত ছিল না। তার জায়গায় বরং অনেক অভ্যস্ত শব্দ ছিল প্রকৃতি। সাধারণ মানুষের সমাজে এই প্রকৃতি-মানুষ সম্পর্কের হোঁচট খাওয়া বা সংকট তৈরি হওয়া তখনও বোধগম্যতায় দেখা দেয়নি যখন অন্য বৃহত্তর ক্ষেত্রে তা স্পষ্ট করে দেখা যাচ্ছিল।
আরও পড়ুন

আমাদের কথা

সংবাদের পাশাপাশি সাহিত্য। এই আয়োজন ছিল শুরু থেকেই। এবার বাংলা ভাষার মননশীল পাঠকদের জন্য “দ্য ওয়াল ” ওয়েব পোর্টাল নিয়ে এল সাহিত্যের সম্পূর্ণ অনলাইন পত্রিকা “সুখপাঠ “। শিল্প -সাহিত্য -সংস্কৃতির অন্য ভাবনা, অনন্য পাঠ।

নিউজলেটার

- Advertisement -

আরও যা রয়েছে