বা়ংলার প্রথম পূর্ণাঙ্গ ডিজিটাল সাহিত্য পত্রিকা

.

.

.

.

সম্পাদকীয়

চৈত্র পেরিয়ে

এই সময়ে একখানি বইয়ের খুব কদর হয়। এই চৈত্র মাসে। তা হল পঞ্জিকা। বাঙালির সারাবছরের নিত্যদিনের হিসেব চলে ইংরেজি হিসেবে। কোনওদিন বাংলা তারিখ জানতে চাইলে সে ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকবে। প্রয়োজন পড়ে না তাই মনেও থাকে না। খবরের কাগজে বা কোনও পত্রপত্রিকার প্রথম পাতায় বাংলা মাস ও দিন ছাপা থাকে। তা দেখে ভুলে যাওয়াই বাধ্যতা। এখনও পর্যন্ত তিনটি বাংলা দিন বাঙালি মনে রাখতে পারে। পয়লা বৈশাখ, পঁচিশে বৈশাখ আর বাইশে শ্রাবণ। অবশ্য গড় বাঙালিকে এমন বলা ভুল হচ্ছে। কেননা বাংলার গ্রামে মুখে মুখে, পুজো-পার্বণে, আচার-বিচারে দিনক্ষণের হিসেবে বাংলা তারিখ চালু আছে। পঞ্জিকা থাকলেও আছে। না থাকলেও আছে। তবে হ্যাঁ, বৈশাখে বাংলা নতুন বছর এসে পড়ার আগে পঞ্জিকা এসে পড়ে। গোটা বছরটা কাজে লাগে তিথিনক্ষত্রের সন্ধান পেতে।

আরও যা রয়েছে

নববর্ষের অনুভূতিমালা

এখন নববর্ষ বলতে, আমাদের বর্ষশুরুর যে উৎসব হয় তা মূলত কলেজ স্ট্রিট বইপাড়া ঘিরে। অন্তত আমার কাছে। কিন্তু সারা বাংলা জুড়ে মঙ্গলঘট নিয়ে রঙিন মিছিলও হয় সকালে। আগে ছিল না। সম্প্রতি শুরু হয়েছে।
আরও পড়ুন

আমার মার্কিনি ১

একবার এক অত্যুৎসাহী বন্ধু আমাকে নিউ ইয়র্কে এক বিদগ্ধ ভারতীয়ের বাড়িতে নিয়ে যায় যেখানে ভারতীয় ইংরেজি লেখক রাজা রাওকে সংবর্ধনা দেওয়া হচ্ছিল। সেখানে আমার দৈবাৎ ঈডিশ লেখক ইজাক বাশেভিৎস সিংগার-এর সঙ্গে দেখা হয়ে যায়।
আরও পড়ুন

শেষবিকেলে সিমলিপালে পর্ব ৩১

মেচ সর্দারের সঙ্গে আমাদের কোনওদিনই দেখা হয়নি। সর্দারের স্ত্রী উঠোনে বসে ঝরে পড়া লাল-কালো-হলুদ কাঁঠালপাতার মধ্যে নানারঙের মোটা সুতো দিয়ে তাঁত বুনতেন। তাঁদের পোশাক ছিল খাসি, গারো বা রাভাদেরই মতো।
আরও পড়ুন

আবার অ্যাক নূতন বছর

নতুন বছরে বাংলা মাধ্যম ইস্কুল বাড়বে, এ আশা বৃথা। বরং এক বছর ধরে ইস্কুল-কলেজ বন্ধ রেখে আবার হাতেখড়ি না দিতে হয়। তবে যে হারে ভাষাদূষণ ঘটছে, অভিধানের নব্য সংস্করণ আশু প্রয়োজন।
আরও পড়ুন

কুসুমের মধু শেষ পর্ব

দেবকুমারের কথা শোনার পর রবির বুকের ভেতর একটা অস্থির তরঙ্গ বয়ে গেল। তাঁর মনে পড়ল বজরায় বসে দ্বিজুবাবুর গলায় গান শোনা। আহা! কী তাঁর গলা! দ্বিজেন্দ্রর ছেলে মন্টু তথা দিলীপও গান গায় অপূর্ব।
আরও পড়ুন

গাড়োয়ালের গহীন পথে পর্ব ৩

হরিদ্বার থেকে হৃষীকেশ নিয়মিত লোকাল ট্রেন চলে। ঘণ্টাখানেকের এই ট্রেন সফরে সহজেই হৃষীকেশ পৌঁছে যাওয়া যায়। পকেটেরও খানিক সাশ্রয় হয়। সেখান থেকে বাস ধরব পরবর্তী গন্তব্যের জন্য। এরকমই পরিকল্পনা করা হয়েছে।
আরও পড়ুন

প্রতিপ্রস্তাব পর্ব ১৮

পূর্ণেন্দু পত্রী এমন এক দ্বীপ যেখানে দাঁড়িয়ে থাকলে বোঝা যায় বাংলা ছবির আলোবাতাস ফুরিয়ে যাবার নয়। রাত্রি এসে যখন মেশে দিনের পারাবারে, পূর্ণেন্দু সেই কুয়াশাময় এলাকাটিতেই কবিতার ধ্বনিকে চিত্ররেখাডোরে বেঁধে দিতে চান।
আরও পড়ুন

হারান কার্তিক

গেট থেকে বারো-চোদ্দো ফুটের সরু উঠোনটা পেরিয়ে বারান্দায় উঠে আসছে নিরুপম। সেখানে সার দিয়ে সাজানো টবের ফুল গাছগুলোর চেনা গন্ধকে ছাপিয়ে একটা চেনা কিন্তু অসম্ভব গন্ধ ঝাপটা মারল ইলার নাকে।
আরও পড়ুন

দাও গো বলে কারও কাছে হাত পাতিনি : রতন কাহার

আমি চেষ্টা করেছি অন্তত একটা ভাল গান লিখে যেতে। যাতে একদিন আমি না থাকলেও যেন ওই গানের মধ্যেই বেঁচে থাকি। আজ অনেকে জেনেছেন। নতুন করে খুঁজছেন আমার গান। একজন সামান্য শিল্পীর এর চেয়ে বেশি আর কী চাই!
আরও পড়ুন

দাম্পত্য

এই পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ মানুষের কথা ভাবুন আর ভাবুন তাদের দাম্পত্য সম্পর্কে। এই পৃথিবীর সমস্ত জীবের কথা ভাবুন, যেমন ধরুন মাছ বা পাখি, সঙ্গে তাদের বিয়ের কথাও ভাবুন। গুটিকয়মাত্র অবিবাহিত মানুষের কথা ভেবে লাভ নেই, তারা ভীষণই সংখ্যালঘু।
আরও পড়ুন

রায়চৌধুরী ইকুয়েশন

শেষপর্যন্ত অমলকুমার রায়চৌধুরী আবিষ্কৃত ‘Roychowdhury Equation’-এর হাত ধরেই সমস্ত সংশয় দূর করে ব্রিটিশ বিজ্ঞানী রজার পেনরোজ এবং আরও দুই বিজ্ঞানী রাইনহার্ড গেনজেল ও আন্দ্রেয়া ঘেজ ২০২০ সালের নোবেল পুরস্কার জিতে নেন।
আরও পড়ুন

পশ্চিম সীমান্ত বাংলার চৈতি পরব

পশ্চিম সীমান্ত বাংলার লোকপরবগুলি অধিকাংশই পুরাণ, টোটেমিক মিথ-নির্ভর। আর্য ও অনার্য কৃষি সংস্কৃতির সমন্বয়ে এখানকার লোকপরবগুলি বর্তমান অস্থির সময়ে সম্প্রীতির আলো ছড়ায়, যে আলো আমাদের আগামী জীবনকে ঋদ্ধ করে।
আরও পড়ুন

আমাদের কথা

সংবাদের পাশাপাশি সাহিত্য। এই আয়োজন ছিল শুরু থেকেই। এবার বাংলা ভাষার মননশীল পাঠকদের জন্য “দ্য ওয়াল ” ওয়েব পোর্টাল নিয়ে এল সাহিত্যের সম্পূর্ণ অনলাইন পত্রিকা “সুখপাঠ “। শিল্প -সাহিত্য -সংস্কৃতির অন্য ভাবনা, অনন্য পাঠ।

নিউজলেটার

আরও যা রয়েছে